bmusc.edu.bd

চরণ ছুয়ে যাই-৩

আমার শিক্ষকদের মধ্যে যে মানুষটিকে আভিজাত্যের অনন্য উচ্চতায় দর্শন করি, তিনি স্বর্গীয় যোগেন্দ্র চন্দ্র রায়। তাঁর মতো করে ধুতি-পাঞ্জাবি-নাগড়া পড়া পুরুষ দেখিনি। তিনি আধাকাঁচা চুলে বেকব্রাশ করতেন, ধবধবে ফর্শা মানুষটিকে সত্যিই অসাধারণ মনে হতো। তাঁর চোখ রাঙানোকে অবজ্ঞা করার মত দুর্বিনীত ছাত্র কোন কালেই ছিল না। তাঁকে ধুতি-পাঞ্জাবি-নাগড়ায় অসাধারণ ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন মানুষ মনে হতো। একসময়

bmusc.edu.bd

চরণ ছুঁয়ে যাই-২

প্রবল চন্দ্র বসাক স্যারকে নিয়ে আমার অনেক স্মৃতি, অনেক শ্রদ্ধা। তিনি ১৯৪৭ সালে ৩ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের বড়রিয়া গ্রামের সম্ভ্রান্ত বসাক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম কুটশ্বর চন্দ্র বসাক। তিনি বিবেকানন্দ হাই স্কুল থেকে এসএসসি এবং করটিয়া সরকারি সাদত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে এইচএসসি ও বিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে এমএসসি, এমএড ডিগ্রি

bmusc.edu.bd

চরণ ছুয়ে যাই -১

আমার শিক্ষক, শ্রদ্ধেয় নূরুল ইসলাম বিএসসি। চিরকুমার, নির্ভীক, চরম নীতিবান, কর্তব্যপরায়ন, অধ্যবসায়ী, একজন আদর্শবাদী মানুষ।নূরুল ইসলাম স্যার ১৯৩১ সালের ১ জানুয়ারি সোনারগাঁও উপজেলার নবীনগর গ্রামে জন্মে ছিলেন । তিনি হোসেনপুর উচ্চ বিদ্যালয় হতে ম্যাট্রিকুলেশন ও হরগঙ্গা কলেজ থেকে বিএসসি ডিগ্রি নিয়েছিলেন। তিনি ১৯৫৪ সালে বিএম ইউনিয়ন হাই স্কুলে বিএসসি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেছিলেন। ১৯৮৩ সালে

bmusc.edu.bd

বি.এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইতিকথা

বি.এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইতিকথা১৯০০ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনাকান্দা মৌজায়, বর্তমানে যেখানে পানি বিশুদ্ধকরণ প্লান্টটি রয়েছে, সেখানে বিএম ইউনিয়ন হাই স্কুল নামে সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত একটি ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। বন্দর ও মদনগঞ্জ (বি.এম) ইউনিয়নের ছাত্রদের জন্য প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হয় বলে এরূপ নামকরণ করা হয়। বন্দরের জমিদার হরি মোহন সেন ও বন্দর-মদনগঞ্জ ইউনিয়নের