শতাব্দী প্রাচীন বি এম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাকালীন সম্পূর্ণ ইতিহাস সংরক্ষিত না থাকায় এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানা কষ্টকর। তবে প্রাপ্ত বিভিন্ন তথ্য থেকে এতটুকু নিশ্চিত হওয়া যায় যে,সোনাকান্দায়, বর্তমানে যেখানে পানি বিশুদ্ধকরণ কারখানাটি স্থাপিত, সে স্থানে ১৯০০ ইং সনে কোন এক শুভলগ্নে বি এম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় নামের এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি স্থাপিত হয়। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে বন্দর ও মদনগঞ্জ ইউনিয়নবাসীর উদ্যোগে স্থাপিত হয় বলে বিদ্যালয়টির নামকরণ করা হয় বি এম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়।
১৯২১ সনে অজ্ঞাত কারনে উক্ত স্কুল ঘর পুড়িয়ে দেয়া হলে শিক্ষাদান কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। এ দুর্যোগ মুহুত্তে বন্দরের তৎকালীন জমিদার শ্যী দ্বিজেন্দ্র মোহন সেন এর ভূমি দান ও আর্থিক সহায়তায় এবং শিক্ষক স্বর্গীয় বাবু কুঞ্জ বিহারী সাহার অক্লান্ত প্রচেষ্টায় এলাকাবাসীর সক্রিয় উদ্যোগে বর্তমান স্থানে ১৯২২ খ্রিঃ বিদ্যালয়টি পুনঃ প্রতিষ্টিত হয়। ১৯৩১ খ্রিঃ ৮জানুয়ারি এ বিদ্যালয়ের একতলা পাকা ভবন উদ্বোধন করেন তৎকালীন নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যান মি. এম এইচ সিরকোর। ১৯৩২ খ্রিঃ বিদ্যালয়টি কলকতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক স্থায়ী স্বীকৃতিপ্রাপ্ত হয়। বর্তমানে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্থায়ী স্বীকৃতিপ্রাপ্ত হয়। বর্তমানে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত।
বিদ্যালয়ের বিভিন্ন দুঃসময়ে যারা সার্বিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে সর্বজনাব মরহুম মোঃ কাদির মিয়া, মোঃ চাঁন খাঁন, কাজী শামসুদ্দিন, গোষ্ঠবিহারী সাহা, রাজেন্দ্র চন্দ্র পাল, গুল মুহম্মদ ভূঁইয়া, আব্দুল মান্নান মুন্সী, আফজাল হোসেন,নুরুল হক চেযারম্যান,মোঃ এমদাদ হোসেন,ডাঃ রফিকুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া, জয়নুল আবেদীন খাঁন ,প্রধান শিক্ষক আব্দুল রহমান ও বাবু যোগেন্দ্র চন্দ্র রায় প্রমুখের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।১৯৮৬ খ্রিঃ থেকে বিদ্যালয়ের সুদৃশ্য বহুতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এতে বিশেষ অবদান রেখেছেন স্বনামধন্য সমাজসেবী ,শিক্ষানুরাগী এবং বিদ্যালয়ের প্রান্তন সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কাজী আব্দুল কাইউম। বিদ্যালয়টির সার্বিক উন্নয়নে তিনি ৪০ বৎসর নিঃস্বার্থে সেবা প্রদান করে একটি সুসংহত রূপ দিতে সক্ষম হয়েছেন।
বিদ্যালয় ২০১৩ সনে কলেজে উন্নীত করা হয় বি এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজ। ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে কলেজ কার্যক্রম চালু হয় যা শিক্ষা মন্ত্রনালয় ও ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড থেকে অনুমোদন লাভ করে এবং কলেজ কোড ২৫২৯ দেওয়া হয়।
উপরোক্ত উন্নয়ন কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় পরবর্তীতে জমিক্রয় সহ বিভিন্ন উন্নয়নমূখী কার্যক্রম পরিচালিত হয়। প্রধানমন্ত্রীর ভিশন’২১ ডিজিটালইজড কর্মসূচী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্তমান গর্ভনিং বডি ২০১৫ সনের ১০ জুন তারিখে দায়িত্বভার গ্রহনের পরপরই প্রতিটি ক্লাস রুমে হোয়াইট বোর্ড স্থাপন, ১৪টি শ্রেণি কক্ষে প্রজেক্টরের মাধ্যমে শিক্ষাদানের ব্যবস্থা গ্রহন করে এবং সকল শ্রেণিকক্ষে সি সি ক্যামেরার আওতায় আনেন। এরফলে প্রতিষ্ঠান প্রধান ও কর্তৃকক্ষ শ্রেণি কার্যক্রম সরাসরি পর্যবেক্ষন করতে পারেন। এতে শিক্ষাদানের গতিশীলতা এসেছে। শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যৎতে এর সুফল পাবে এবং শিক্ষাদানের গুনগত মান আরো বৃদ্ধি পাবে। এ ছাড়া বর্তমান গর্ভনিং বডি সম্প্রতি বিদ্যালয়ের প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন ৬.৭০ শতাংশ জমি প্রায় ৮১ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ক্রয় করে প্রতিষ্ঠানের সম্পদ বৃদ্ধি করেছেন।
সুষম ও উদারভিত্তিক শিক্ষা ব্যবস্থার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মেধার পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটানো যুগোপযোগী প্রযুক্তিনির্ভর, নৈতিক মূল্যবোধ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ আধুনিক শিক্ষা প্রদান এবং ছাত্র-ছাত্রীদের চারিত্রিক ও মানবিক গুনাবলীর সার্বিক বিকাশ সাধনের মাধ্যমে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা এ বিদ্যালয়ের অন্যতম লক্ষ্য। এছাড়া জুনিয়র বৃত্তিসহ এস এস সি পরীক্ষায় উন্নত ফলাফল অব্যাহত রয়েছে।

বই বিতরন উৎসব - ২০১৬

Hover Box Element

বই বিতরণ উৎসব -২০১৬ বক্তিতা রাখেন বি।এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সভাপতি  আবুল জাহের চেয়ারম্যান ।

Hover Box Element

বই বিতরণ উৎসব -২০১৬ বক্তিতা রাখেন বি।এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সভাপতি  আবুল জাহের চেয়ারম্যান ।

বই বিতরন উৎসব - ২০১৬

Hover Box Element

বই বিতরণ উৎসব -২০১৬ বক্তিতা রাখেন বি।এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সভাপতি  আবুল জাহের চেয়ারম্যান ।

সভাপতি

bm union school and college

প্রধান শিক্ষক

bm union school and college

সহকারী প্রধান শিক্ষক

bm union school and college

This is custom heading element

Inspiration Of
Beauty In Simplicity.